লাশ খেকোর প্রত্যাবর্তন

আপনি হয়তো গভীর রাতে দূরপাল্লার বাসে দূরের কোন গন্তব্যে যাচ্ছেন । বাসে যাত্রী বলতে গেলে শুধুই আপনি । সাথে আছে হেল্পার আর ড্রাইভার । হঠাত্ কিছু লোক আপনাদের বাসটাকে থামতে ইশারা করলো । তাদের সাথে একটা কাপড়ে জড়ানোলাশ । বাস থামলে তারা ড্রাইভারের কাছে একটা লিফ্ট চাইলো । তারা বললো যে, লাশটাকে তারা কবরস্থানে নিয়ে যাচ্ছে দাফন করার জন্য । কাছাকাছি কোন কবরস্থান পেলেই নেমে যাবে । হেল্পার আর ড্রাইভার কোন সন্দেহ ছাড়াই তাদেরকে লিফট দিল । বাসের একদম পিছনে গিয়ে তারা বসলো । কিছুক্ষণ পর আপনি লক্ষ্য করলেন যে তারা অদ্ভূত একটা কাজ করছে । লাশটাকে কাপড় থেকে বের করছে । তারপর আপনার চোখের সামনে আপনাকে হতবাক করে দিয়ে হঠাত্ তারা লাশটাকে টেনে টেনে , কামড়ে কামড়ে খেতে লাগলো । কেমন লাগবে আপনার টাটকা একটা লাশ এভাবে খেতে দেখলে ??

এটা কোন হরর মুভির দৃশ্য নয় । বাংলাদেশ সহ আরো বিভিন্ন দেশের ভয়াবহ ঘটনা এটি ।
উপরে এতক্ষণ যাদের কথা পড়লেন , এরা এমন এক ধরনের জিনিস যাদের কাজই হলো লাশ খেয়ে ফেলা । এদেরকে বলা হয় “আদমখোর ।”

আমাদের মাঝে অনেকেই আছেন , যারা এই আদমখোরদের কথা জানেন । গ্রামেও অনেক
ঘটনা আছে আদমখোরদের নিয়ে । গভীর রাতে কবরস্থান থেকে সদ্য সমাহিত করা লাশ এসব
আদমখোরেরা চুরি করে নিয়ে যায় । পরে সেসব লাশ কে আধা খাওয়া অবস্থায় পাওয়া যায় । লাশের ভিতরে দেখা যায় কলিজা, কিডনি , ফুসফুস এগুলো নেই । অনেকেই বলে যে , এসব কাজ শিয়ালে করে থাকে অথবা অনেক অসাধু লোক মরা মানুষের কিডনি , লিভার চুরি করে বিক্রী করে দেয় । তবে যেটাই ঘটে থাকুক না কেন , কোন কোন জংলা জায়গায় অথবা কবরস্থানে অনেকেই এসব আদমখোরদেরকে লাশ খাওয়া অবস্থায় দেখেছেন ।

আদমখোররা দেখতে মানুষের মত হলেও এরা আদৌ মানুষ কিনা সে ব্যাপারে সংশয় আছে ।

এম্বুলেন্স দিয়ে লাশ নিয়ে যাওয়ার সময়ও অনেক আজব আজব ব্যাপার ঘটে । এম্বুলেন্সের
ড্রাইভারদের সাথে এমন সব ঘটনা ঘটে যার কারণে অনেকেই এম্বুলেন্স চালানো ছেড়ে দেয় । এক এক জনের অভিজ্ঞতা এক এক রকম । কেউ কেউ বলেছে যে , লাশ নিয়ে যাওয়ার সময় গাড়ীর ইঞ্জিনে সমস্যা হয়েছে । কারো গাড়ীর গতি কমে গিয়েছিল , কেউ কেউ রাস্তায় কাপড়
দিয়ে ঢাকা লাশ পড়ে থাকতে দেখেছে । অনেকে এও বলেছে যে তারা গাড়ীর ভিতরে লাশকেই
বসে থাকতে দেখেছে !

কল্পনা হোক অথবা বাস্তবই হোক , এরকম পরিস্থিতিতে নিশ্চয় আপনি গাড়ী চালাতে পারবেন
না !! অনেকেই বলে থাকেন যে, লাশ নিয়ে যাওয়ার সময় খারাপ জিনিস লাশকে ছিনিয়ে নিয়ে যেতে চায় । নৌকা দিয়ে লাশ নিয়ে যাওয়ার সময় নাকি অদৃশ্য কিছু লাশকে খেয়ে রেখে যায় । কিসের কাজ কে জানে ??

বিদেশে প্রেতসাধনা অথবা শয়তান কে খুশী করার জন্য গ্রেভইয়ার্ড থেকে লাশ চুরি করে নিয়ে যাওয়া হয় । টাকার বিনিময়ে প্রেতসাধকরা এসব কাজ গ্রেভইয়ার্ডের লোকদের দিয়ে করায় । সমাহিত করার সময় কফিনের ভিতর লাশ আছে নাকি নেই , সে মাথাব্যাথা কারই বা থাকবে??

আপনি এখন হয়তো বাসে করে কোথাও যাচ্ছেন । বাসে আপনি ছাড়াও পিছনের সিটে কিছু লোক বসে রয়েছে । তাদের সাথে লাশ না থাকুক তাতে কী ? তাকিয়ে দেখুন তো , দু চোখ ভরা লোভ নিয়ে ওরা আপনার দিকে তাকিয়ে নেই তো ?? সুযোগ পেলে মরা মানুষের চেয়ে জ্যান্ত মানুষের মাংস খেতে ওরা নিশ্চয় দ্বিধা করবেনা ?!?

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.